ভাত বা ওষুধ খাওয়ার সময় ভয় করে গলায় বা শ্বাসনালীতে আটকে যাবে

ভাত বা ওষুধ খাওয়ার সময় ভয় করে গলায় আটকে যাবে বা শ্বাসনালীতে আটকে যাবে এইরকম ভয় হয় তাই ভাত ও ওষুধ খেতে পারি না কি করবো একটু পরামর্শ দেন আমার অনেক খুদা লাগে তাই ভয়ের জন্য খেতে পারি না।

পরামর্শ

এটা কিন্তু বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত নয় যে ওষুধ খাওয়ার পর সেটি রোগী বুঝতে পারে যে ওষুধ কি কিভাবে কোথায় যাচ্ছে।

১. এটা আমাদের নার্ভ সিস্টেমের দুটি ধরন আছে একটি হলো অটোমেটিক নার্ভ সিস্টেম। যেমন আপনি ওষুধটি ধরে খেয়েছেন এটি আপনার অটোমেটিক নার্ভ সিস্টেম কাজ করেছে।

২. এরপর সোমাটিক নার্ভ সিস্টেম। আপনি ওষুধ খাওয়ার পর এই নার্ভ সিস্টেম কাজ করে। কিন্তু কিভাবে কাজ করে সেটা কিন্তু আপনি বা আমি জানেন না। এটা আপনি মনের ভুলে ধরে আছেন।

তাহলে কি করবেন?

আমি একটি সাইকোলজিকাল টিপস শেয়ার করছে। মন দিয়ে প্র্যাকটিস করবেন। আশা করি আপনি সফল হবেন।

যখন মনে হচ্ছে ওষুধটি এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাচ্ছে একটু অনুভব করুন আপনার মনে কি কি চিন্তা আসছে এবং ওই চিন্তা গুলো অনুযায়ী আপনার কি ধরনের অনুভূতি হচ্ছে। যেমন আপনি কি উদ্বিগ্নতা, মানসিক চাপ, অস্বস্তি, বিরক্ত ইত্যাদি অনুভব করছেন কিনা।

এরপর চোখ বন্ধ করে একটু শরীরের দিক মনোযোগ দিন আপনার শরীরের কোন জায়গাতে কি ধরনের অনুভূতি হচ্ছে সেগুলো অনুভব করুন। হয়তো আপনার মাথায় ব্যথা করতে পারে, বুক ধরফর করতে পারে, পেটে জ্বালা অনুভব হতে পারে এগুলো অনুভব  করুন। সময় নেয়ে দু চার মিনিট এগুলো অনুভব করুন।

এরকম অনুভব হলে এর কি যথেষ্ট কারণ আছে?
কারণ থাকলে কি? যদি কোন কারণ আপনার মনে হয়ও তাহলে তাতে সর্বোচ্চ ক্ষতি কি হতে পারে (পজ এবং সময় নিম) এগুলো নিজে নিজে একটু ভাবেন।

সর্বশেষে মনে রাখবেন আমি যে অটোনমিক নার্ভ সিস্টেমের কথা বলেছি সেটিকে শান্ত রাখা গুরুত্বপূর্ণ। আর সেটিকে শান্ত রাখতে হলে আপনি নিয়মিত শ্বাসের ব্যায়াম এবং মেডিটেশন করবেন একটা সময় দেখবেন এই ধরনের অস্বস্তি বোধ আর থাকবে না।

এরপরও খুব বেশি সমস্যা হলে আপনি অবশ্যই একজন কাউন্সেলিং সাইকোলজিস্ট এর শরণাপন্ন হবেন। আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল।

পরামর্শ দিয়েছেন

মোঃ আসাদুজ্জামান রাজু আকন কাউন্সেলিং সাইকোলজিস্ট ও এমফিল রিসার্চ ফেলো Part-2 ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top